তিন সিটিতে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন, চলছে গণনা

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩০ জুলাই, ২০১৮
  • ২৯৫ বার পঠিত
প্রতিকী ছবি

আলোকিত খবর ডটকম ডেস্ক : রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। আজ সোমবার বিকেল ৪টায় এই তিনি সিটিতে ভোটগ্রহণ শেষ হয়। তবে তিন সিটিতেই অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলার অভিযোগ এনেছেন বিএনপির তিন মেয়র প্রার্থী।

নতুন মেয়র নির্বাচনে ৩ সিটিতে প্রায় ৯ লাখ ভোটার ৩শ’ ৯৫টি কেন্দ্রে ভোট দেন। এর মধ্যে ১৫টি কেন্দ্রে ভোট হয়েছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে।

তিন সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে ১৮ জন ও কাউন্সিলর পদে ৫শ’ ৩০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনের নিরাপত্তায় ছিলেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় সাড়ে ১৭ হাজার সদস্য।

রাজশাহী
রাজশাহীতে বিএনপি প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এজেন্ট বের করে দেয়াসহ নানা অভিযোগে কেন্দ্রের ভেতরে অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদ করেছেন। তবে তিনি ভোট বর্জনের ঘোষণা দেননি।

রাজশাহীর নগরের ৩০ নম্বর ওয়ার্ড ইসলামিয়া কলেজ কেন্দ্রে ব্যালট পেপার হিসাব চেয়ে আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে কেন্দ্রের বাইরে অবস্থান নেন বিএনপি মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। তবে ব্যালট পেপার শেষ হওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন প্রিজাইডিং অফিসার আব্দুল্লাহিল সাফি।
এর আগে সকালে মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল অভিযোগ করেন সকাল সাড়ে সাতটার দিকে আমার সকল এজেন্টরা কেন্দ্রে পৌঁছেছেন। কিন্তু তাদের ঢুকতে দেয়া হয়নি। প্রিসাইডিং অফিসারের কাছে বলার পরও এজেন্টদের ঢুকতে দিচ্ছেন না।

রাজশাহী সিটিতে মোট ভোটার ৩ লাখ ১৮ হাজার ১৩৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ৫৬ হাজার ৮৫ জন ও নারী ১ লাখ ৬২ হাজার ৫৩জন। ভোট কেন্দ্র ১৩৮টি ও ভোট কক্ষ ১ হাজার ২৬টি।

বরিশাল
বরিশালে বিএনপি প্রার্থী মজিবর রহমান সরওয়ারসহ ইসলামী আন্দোলনের ওবাইদুর রহমান, বাসদের মনীষা চক্রবর্ত্তী ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির আবুল কালাম আজাদ ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

জাল ভোট দেয়া, অনিয়ম ও হামলার অভিযোগ এনে তারা এ ঘোষণা দেন।

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার অভিযোগ করেছেন, ভোটগ্রহণ চলাকালে নগরীর বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে তার পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে।

বিএনপির মেয়রপ্রার্থী বলেন, বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে আমার ৫০ জন পোলিং এজেন্টকে বের করে দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালন করেছে পুলিশ। যেখানে পুলিশের আমার এজেন্টদের সুরক্ষা দেওয়ার কথা সেখানেই তারাই বের করে দিচ্ছে।
মনীষা চক্রবর্তী বলেন, তিনি সদর গার্লস স্কুল কেন্দ্রে গিয়ে প্রকাশ্যে নৌকা প্রতীকে সিল মারতে দেখেন। প্রতিবাদ করলে তাঁর ওপর দুই দফায় হামলা করা হয়। অভিযোগ জানানোর পরও এই কেন্দ্রে নির্বাচন এখনো চলছে। এই কেন্দ্রের মতো সব কেন্দ্রেই নৌকায় সিল মারা হচ্ছে।

বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি মনোনীত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বরিশাল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ভোট গ্রহণে নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করেছেন।

এদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস বরিশালে ভোট স্থগিত চেয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছেন। তিনি সংবাদ সম্মেলন করে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেবেন বলে তার নির্বাচনী এজেন্ট জানিয়েছেন।

সিলেট
বিএনপি প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী ৪১টি কেন্দ্রের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ এনে দুপুরে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে ভোট বাতিলের লিখিত আবেদন করেন। এর মধ্যে দুটি কেন্দ্র স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। জনগণের ভোটাধিকার হরণ হয়েছে উল্লেখ করে আন্দোলনের ঘোষণা দেন তিনি। জাল ভোট ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় কিছু কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ কার্যক্রম বন্ধ ছিল।
মেয়র পদে বিএনপি-মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী দুপুরে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে ভোট বাতিলের লিখিত আবেদন করেন। এর আগে নগরের কাজী জালালউদ্দিন বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করে নিজ কার্যালয়ে গিয়ে বলেন, এবার ভোট চুরির ঘটনা সব সীমা ছাড়িয়ে গেছে। এমনটা সিলেটে আগে কখনো হয়নি। মানুষের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে। ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার আন্দোলনের ডাক দেবেন বলে তিনি জানান।

এদিকে মেয়র পদে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) মনোনীত প্রার্থী মো. আবু জাফর ‘নজিরবিহীন কারচুপির’ অভিযোগ এনে সব কেন্দ্রের ভোট বাতিলের আবেদন করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামানের কাছে। সূত্র : এবিনিউজ

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..