সংবাদ শিরোনাম :
পঞ্চগড়ে সবুজ আন্দোলনের উদ্যোগে জলবায়ু সমস্যা ও উত্তরণের উপায় শীর্ষক সভা ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি রায়পুরায় আন্ত:গ্রাম ফুটবল টুর্নামেন্ট দ্বিতীয় দিনের খেলা অনুষ্ঠিত আল্লামা অলিপুরীর উপস্থিতিতে রাবেতাতুল ওয়ায়েজীনের বিশেষ বৈঠক বেনাপোল কাস্টম হাউসের ভল্ট ভেঙ্গে ১৯ কেজি স্বর্ণ চুরি মনোহরদীতে মাদক বিরোধী গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে হাজারো মানুষের ঢল আবারো বাড়ল পেঁয়াজের দাম রেল সংশ্লিষ্টদের সতর্ক হওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী প্রায় ৮ ঘণ্টা পর ঢাকা-চট্টগ্রাম রেল চলাচল শুরু মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু তাহের ভূইঁয়ার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ কসবার ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৫, তদন্ত কমিটি

প্রশ্নপত্র মুদ্রণে ভুল! যশোর বোর্ডে এসএসসির বাতিল পরীক্ষা ২৮ফেব্রুয়ারি

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক : প্রশ্নপত্রের মুদ্রণে ভুল থাকায় যশোর শিক্ষা বোর্ডে এসএসসির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পরীক্ষা ২৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া আগামীকাল বুধবারের ক্যারিয়ার শিক্ষা বিষয়ের পরীক্ষা আগামী ২ মার্চ বেলা দুইটায় সারা দেশে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে।

যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ আবদুল আলীম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আইসিটি বিষয়ের বহুনির্বাচনী অভীক্ষার প্রশ্নপত্রের ঘ সেটের প্রশ্ন ভুল হয়েছে। এ সেটের প্রশ্নপত্রের প্রথম পৃষ্ঠায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ের ১২টি প্রশ্ন ছাপানো হয়েছে আর অপর পৃষ্ঠার ১৩টি প্রশ্ন এসেছে আগামীকালের (বুধবার) ক্যারিয়ার শিক্ষা বিষয় থেকে। যে কারণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ও অতিরিক্ত সচিব মহোদয়ের সঙ্গে কথা বলে যশোর শিক্ষা বোর্ডের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।’

শিক্ষা বোর্ড, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছ থেকে জানা গেছে, আজ সকাল ১০টায় মাধ্যমিক পরীক্ষার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ে ২৫ নম্বরের পরীক্ষা শুরু হয়। ক, খ, গ এবং ঘ সেটের প্রশ্নপত্র পরীক্ষার হলে সরবরাহ করা হয়। ঘ সেটের প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার পর শিক্ষার্থীদের মধ্যে হইচই শুরু হয়। কারণ, প্রশ্নপত্রের দুই পৃষ্ঠায় দুই বিষয়ের প্রশ্ন ছিল। মুহূর্তের মধ্যে খবরটি অভিভাবকদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, ‘এটা যশোর শিক্ষা বোর্ডের কোনো ভুল না। বিজি প্রেসের মুদ্রণজনিত ত্রুটির কারণে এমনটি হতে পারে। তারপরও আমরা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছে ক্ষমা চাইছি। ভবিষ্যতে যাতে ত্রুটিমুক্ত পরিবেশে সব পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়, সে বিষয়ে আমরা আরও সতর্ক হব। সূত্র:-প্রথম আলো

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..