গুরুদাসপুরে দুই দিনব্যাপী জাতীয় সেপাক টাকরো চ্যাম্পিয়নশীপ শুরু

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

গুরুদাসপুর(নাটোর)প্রতিনিধিঃ- নাটোরের গুরুদাসপুরে শুরু হয়েছে জাতীয় সুপার সিরিজ-১ সেপাক টাকরো চ্যাম্পিয়নশীপ-২০১৯। শুক্রবার উপজেলার খুবজীপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত জাতীয় সুপার সিরিজ-১ সেপাক টাকরো
চ্যাম্পিয়নশীপের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস।

জেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত এবং জেলা প্রশাসক মোহম্মদ শাহরিয়াজের সভাপতিত্বে উদ্বোধনীতে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব জোবেদা খাতুন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাইদুর রহমান, নাটোরের পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন, বিপিএম, পিপিএম, গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনির হোসেন, বাংলাদেশ সেপাক টাকরো এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক
ফারুক ঢালী, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোস্তাক আলী মুকুল প্রমূখ। দুই দিনব্যাপী এই জাতীয় সুপার সিরিজ-১ সেপাক টাকরো চ্যাম্পিয়নশীপে ঢাকা, চট্রগ্রাম, সাতক্ষীরা, খুলনা, নীলফামারী,
সিরাজগঞ্জ, রাজবাড়ী, রাজশাহী, বগুড়া ও স্বাগতিক নাটোর জেলা দলসহ ১০ টি দল অংশগ্রহণ করছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস অভিভাবকদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনার সন্তানদের এই খেলায় পারদর্শী করে গড়ে তুলুন। আমাদের সকলের উচিত খেলায় দেখায় অংশ নেওয়া। মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই। তাই আসুন আমরা আমাদের ছেলে- মেয়েদেরকে পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলায় নিয়োজিত করি। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ স¤পাদক সৈয়দ মোস্তাক আলী মুকুল বলেন, সমাজকে মাদক মুক্ত রাখতে নতুন এই প্রতিযোগতিার আয়োজন করা হয়েছে। খেলাটি যুব সম্প্রদায়ের মাঝে বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছে। সেপাক টাকরো খেলাটি মুলত ভলিবল আদলের হলেও হাত ব্যবহার করা নিষিদ্ধ। তবে শুরুতে সার্ভিসিংয়ের সময় হাত ব্যবহার করা যায়। এছাড়া খেলা চলাকালীন পা, মাথা সহ শরীরের সব অংশই ব্যবহার করা যায়। বল মাটিতে পড়লে পয়েন্ট যায় প্রতিপক্ষ দলের পক্ষে। প্রতিটি দলে ৫ জন করে খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। অংশ নেয় তিনজন করে। বেশ মজাদার এই খেলা দেখতে প্রচুর দর্শকের সমাগম হয়।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..