নরসিংদীতে বৃদ্ধ কৃষকের উপর হামলা ॥ মামলা করায় প্রাণনাশের হুমকি

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ, ২০১৯
  • ৮০ বার পঠিত

নরসিংদী প্রতিনিধি : হাজী মোঃ সুলতান উদ্দিন নামে এক বৃদ্ধ কৃষকের উপর বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। গত ২ ফেব্রুয়ারি শনিবার সকালে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার পুটিয়া ইউনিয়নের শেরপুর গ্রামে কৃষকের নিজ বাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় তার ছেলে সালাউদ্দিন এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। এই ঘটনায় আদালতে মামলা করা হলে আসামীরা তাদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।
মামলার তথ্য বিবরণী থেকে জানা গেছে, ঘটনার দিন সকালে মোঃ নাজিম উদ্দিন (৪৫) এবং তার ছেলে মোঃ আজিজুল হক (২২) এর নেতৃত্বে পার্শ্ববর্তী ভরতেরকান্দি এলাকার মোঃ রিপন মিয়া (২৬), মোঃ ওয়াবদুল (২৮) এবং পার্শ্ববর্তী বাদুয়ারচর এলাকার ওমর (২৫)- এই ছয় ব্যক্তি ঘটনার দিন সকালে ওই বৃদ্ধ কৃষকের বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা চালায়। তারা কৃষকের বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর করে মূল্যবান জিনিসপত্র নষ্ট করে দেয়। তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে বৃদ্ধ কৃষক হাজী মোঃ সুলতান উদ্দিনকে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় তার ছেলে মোঃ সালাউদ্দিন এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে তারা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন আহত কৃষক হাজী মোঃ সুলতান উদ্দিন এবং তার ছেলে সালাউদ্দিনকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। আর এই ঘটনার পর গত ৫ ফেব্রুয়ারি আহত কৃষকের ছেলে ফজলে রাব্বি বাদী হয়ে উল্লেখিত ৬ ব্যক্তিকে আসামী করে নরসিংদীর অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।
মামলার বাদী ফজলে রাব্বি জানান, এই বর্বরোচিত হামলার বেশ কিছুদিন আগে থেকেই উল্লেখিত ব্যক্তিরা আমাদের জমির উপর অবৈধ দখলের চেষ্টা চালায় এবং তারা মালিকানা দাবি করে মোটা অংকের চাঁদা চায়। ঘটনার দিন তারা তাৎক্ষণিক ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তার পিতার নিকট। চাঁদা না দেয়ায় তারা আমাদের বাড়ীতে ভাংচুর করে এবং আমার পিতা ও ভাইকে মারাত্মকভাবে পিটিয়ে আহত করে চলে যায়। তিনি আরও জানান, উল্লেখিত আসামীরা এই ঘটনার আগেও তাদের ফসলী জমি নষ্ট করে দেয়। তিনি বলেন, এসব সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের ঘটনায় আদালতে আমি মামলা করতে বাধ্য হই। কিন্তু মামলা করার পর আসামীরা এখন আমাদেরকে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে যাতে মামলা তুলে ফেলি। আর মামলা না তুললে আমাদেরকে এলাকায় ঢুকতে দিবে না। আমরা এখন তাদের ভয়ে ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছি।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..