রায়পুরায় নৌকার পক্ষে নির্বাচনী আলোচনা ও মতবিনিময় সভা

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১১ মার্চ, ২০১৯
  • ৭৩ বার পঠিত

 

রায়পুরা (নরসিংদী) থেকে: মো: রফিকুল হক রফিক, রায়পুরায় নৌকার পক্ষে বিশাল নির্বাচনী আলোচনা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
হয়েছে। নরসিংদী-৫ (রায়পুরা)আসনের এমপি,সাবেক মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু এর সমর্থীত আনারস মার্কার
স্বতন্ত্র প্রার্থী চাপের মুখে সকল বাঁধা অপেক্ষা করে আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ
হাসিনার মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থী মিজানুর রহমান চৌধুরীর পক্ষে রায়পুরা উপজেলা বিভিন্ন ইউনিয়ন
থেকে আসা কয়েক হাজার আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা বৈইঠা
নিয়ে মিছিলসহ কারে সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে নির্বাচনী মতবিনিময় সভাকে বিশাল জনসভার রুপ ধারন করেন।
গতকাল বিকালে নরসিংদীর রায়পুরা পুরাতন সাব- রেজিষ্টার অফিস এর মাঠে উপজেলা
আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযুদ্ধা আফজাল হোসাইন এর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক ইমান উদ্দিন ভুইয়ার
সঞ্চালনায় উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান চৌধুরীর নৌকা মার্কার নির্বাচনী সভায় বক্তব্য রাখেন
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য এড.এবিএম রিয়াজুল কবির কাউছার,কেন্দ্রীয় যুবলীগ সাধারন
সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা হারুনুর রশিদ,কবি শামছুর রাহমান ফাউন্ডেশনের সভাপতি, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইন
পরিষদের সদস্য,বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ব্যারিস্টার তৌফিকুর রাহমান,কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক মোহাম্মদ সোহেল পারভেজ,

শ্রীনগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান চৌধুরী আজান,উপজেলা পরিষদের সদস্য মো:সাইফুর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ
সভাপতি দীন মোহাম্মদ দিপু, উপজেলা আওয়ামীলীগ অর্থসম্পাদক হাজী মঞ্জুর এলাহী, উপজেলা আওয়ামীলীগ সদস্য
আলহাজ¦ হাসান জামিল বাদল ও নেতা জাহাঙ্গীর আলম সরকার, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা খন্দকার মহিউদ্দিন,
পৌর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মো: কামাল মোল্লা, উপজেলা যুবলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক আশিক
আফজাল,উপজেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি অহিদুজ্জামান পলাশ, তালা মার্কা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো:
মনিরুজ্জামান মনির, মির্জানগর ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারন সম্পাদক হুমায়ন কবীর শান্ত। এসময় এড.এবিএম
রিয়াজুল কবীর কাউছার বলেন,বঙ্গবন্ধু নৌকার মাধ্যমে শেখ হাসিনা মানুষকে স্বপ্ন বাস্তবায়ন করিয়েছেন,মহিলাদের
কাছে ভোট চাইতে হবে,নৌকা মার্কার কারনে এ দেশে অনেক উন্নয়ন মুলক কাজ হয়েছে। জনগন জানে নৌকা
দিয়ে দেশে কি কাজ হয়েছে আর আনারসে ভোট দিলে কি কাজ হবে।

রায়পুরাতে ভোট হলেই বুজতে পারবেন কি ধরনের নির্বাচন হয়েছে। অন্য কোন চিন্তা করে লাভ নাই তিনি বক্তব্যে
আলহাজ¦ হারুনুর রশিদ বলেন,যেখানে স্বয়ং শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীক দিয়ে মিজানুর রহমান চৌধুরীকে
পাঠিয়েছেন, সেখানে আবার তিনি কি করে আনারস প্রতীক এর পক্ষে ভোট চান ? তিনি আরো বলেন, তিনি শেখ
হাসিনার ইজ্জতের উপর হাত দিয়েছেন, মনিবের সাথে যে বৈইমানী করে তার পরিনাম ভাল হবে না। যারা সারা জীবন

নৌকায় ভোট দিয়েছে,তারা আনারসে ভোট দিবে না। যারা নৌকার বিরোদ্ধে বার বার ভোট দিয়েছেন তাদেরই পক্ষে
সম্ভব নৌকার বিরোদ্ধে ভোট দেওয়া। নৌকার লোক কখনো নৌকার বিরোদ্ধে ভোট দিবে না, তাদের হাত-বুক কেঁপে
উঠবে, ভোট হলে ইনশাল্লাহ এমন হারা হারবেন তা তারা কল্পনা করতে পারবেনা। আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ কখনোই
এমন কাজ করবে না, যাতে করে ভবিষতেৎ বৈইমান হিসেবে চিহ্নিত হতে হয়। এ সরকার প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন
অবাধ সুষ্ট নিরপেক্ষ ভোট হতে হবে। আপনি যাকে আনারস মাকার্য় প্রার্থী হিসেবে ধার করিয়েছেন তিনি নাকি
বলেন, সকাল ১০টার মধ্যে নাকি ভোট শেষ করতে হবে । বীরমুক্তিযুদ্ধা আফজাল হোসাইন বলেন,যেখানে দুর্নীতিবাজ
দেখবেন সে খানে রুখতে হবে। জননেত্রী শেখ হাসিনা যে ভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন আমরা সে ভাবেই নৌকার
বিজয়ের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আমরা সকলে হাত তুলে প্রতিজ্ঞা করতে চাই অপরাজনীতির কাছে পরাজিত হতে
চাইনা।
মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেন, আমি জেনে শুনে কোন অনিয়ম করি নাই, কোন থানার দালালি ও করি নাই,
আমার বুকে সাহস আছে আমি রাজনীতি করি বাংলার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুখকে উজ্জল করার জন্য। রায়পুরার
মানুষ অপশাসন থেকে মুক্তি চাই,উপজেলার মাধ্যমে গ্রামকে শহর করা হবে।কোন ষড়যন্ত্রকারী শেখ হাসিনার
নৌকার সাথে ষড়যন্ত্র করে পার পাবেনা।

কান্না বিজরিত কণ্ঠে বলেন, আমি আমার জন্য কিছু চাইনা জননেএী শেখ হাসিনা রায়পুরার মানুষের প্রতি আস্তা
রেখে আমাকে নৌকা মার্কা দিয়ে পাঠিয়েছেন সেই আস্তার প্রতি আপনারা সু-বিচার করবেন । আমি যেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গর্ব করে
বলতে পারি, আপনি যে রায়পুরার মানুষের প্রতি আস্তা রেখে নৌকা প্রতিক দিয়ে আমাকে পাঠিয়েছিলেন, সেই নৌকা বিজয়ী করে আমি আপনার হাতে
এনে তুলে দিলাম ।
আমি ব্যাক্তি প্রচন্দ না হতে পারি আমি মিজান সবার কাছে পচ্ছন্দের পাত্র না হতে পারি, সেই স্বাধীনতার প্রতীক উন্নয়নের প্রতীক
শেখ হাসিনার প্রতীক নৌকাতো সবার পচ্ছন্দ তাহলে আপনারা সেই নৌকাকেই বিজয় করবেন। ব্যারিষ্টার তৌফিকুর
রাহমান বলেন,বঙ্গবন্ধু-শেখ হাসিনার নৌকার কারনে রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু- মন্ত্রী,এমপি হয়ে ছিলেন,নৌকার নাম
ভাগিয়ে এলাকায় ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন,নৌকার সাথে ষড়যন্ত্র করলে পরিনাম ভাল হবেনা, ক্ষমতা অপব্যবহারের
জবাব দিবেন আগামী ২৪ শে মার্চ উপজেলা পরিষদ নিবার্চনে নৌকার

বিজয় নিশ্চিত করে। শেখ হাসিনার নৌকা কোন ভাবে পরাজয় করতে পারবেনা।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..