রায়পুরা সরকারী কলেজে শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতন ২শ টাকা, শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভ

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০১৯

নরসিংদী’র রায়পুরা উপজেলায় একটি মাত্র সরকারি কলেজ সেটা হলো “রায়পুরা সরকারি কলেজ।” যেখানে উপজেলার ২৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা লেখাপড়া করে। গত ০৮ আগষ্ট ২০১৮ইং তারিখ সাবেক মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু এমপির একান্ত প্রচেষ্টায় কলেজটি সরকারি করণ হলে কলেজ কর্তৃপক্ষ আনন্দ মিছিল করে এবং একই সাথে রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু এম.পিকে কলেজ কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেন। এরপর থেকেই কলেজে সরকারি নিয়ম-কানুন মেনে কার্যক্রম শুরু করে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু চলতি বছরের ২৬মে অনার্স প্রথম বর্ষের পরিক্ষার ফরম পুরনে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগের সত্যতার ভিত্তিতে বিভিন্ন দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। বেশ কয়েকটি সংবাদ পত্রে অনিয়মের সংবাদ প্রকাশিত হলেও রহস্যজনক কারনে অদ্যাবদি কোন প্রতিকার বা সমাধান করতে পারেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ। উল্টো সমাধান হিসেবে চালু করা হয়েছে বেসরকারি সব নিয়ম-কানুন। যেখানে ছাত্রছাত্রীদের বলা হয়েছে কলেজ সরকারি হলেও তার কার্যক্রম এখনো চালু হয়নি। যার ফলে এইচএসসি ১ম বর্ষ ও ২য় বর্ষের বেতন পুণরায় ২শ টাকা এবং অনার্স ১ম থেকে ৪র্থ বর্ষ পর্যন্ত বেতন ৪শ টাকা কিন্তু কিছুদিন আগেও এইচএসসির ১ম বর্ষ ও ২য় বর্ষের বেতন ছিল মাত্র ২৫ টাকা ও অনার্স ১ম থেকে ৪র্থ বর্ষ পর্যন্ত বেতন ছিল মাত্র ৩০ টাকা।

এব্যাপারে অধ্যক্ষ মোঃ আমজাদ হোসেন বলেন, সরকারী করনের ঘোষনার পর থেকে গত ১০মাস ধরে এইচএসসি শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতন ২৫টাকা করে আদায় করে আসছিলাম। কিন্তু এখন পর্যন্ত সরকারী করনের কোন সুযোগ-সুবিদা না আসায় আমরা আবার ২৫ টাকার বদলে ২০০টাকা করে বেতন আদায়েল সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

কথা হয় রায়পুরা সরকারী কলেজের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলামের সাথে। তিনি বলেন এইচএসসি পর্যন্ত সরকারী হারে বেতন হবে সেটাই স্বাভাবিক কিন্তু পূণরায় বাড়িয়ে ২০০ টাকা করেছে সে বিষয়ে অবগত নই। বিষয়টি আমি দেখছি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, মো: মোস্তফা খান :

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..