মেসিকে সেরা বানাতে ফিফার এ কেমন ডাকাতি!

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

লিওনেল মেসি-ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সিংহাসনে হানা দিয়ে ইউরোপ সেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতেন লিভারপুলের ভার্জিল ভ্যান ডাইক। প্রথম ডিফেন্ডার হিসেবে উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলার হন তিনি। ফিফা বর্ষসেরা হওয়ার দৌড়েও এগিয়ে ছিলেন ভ্যান ডাইক। তবে ভ্যান ডাইক এবং রোনালদোকে হারিয়ে ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলার হয়েছেন মেসি। রোনালদোকে ছাড়িয়ে সর্বোচ্চ ছয়বার এই পুরস্কার জিতলেন বার্সেলোনা তারকা।

চূড়ান্ত ভোটিংয়ে মেসির পয়েন্ট ছিল ৪৬, ফন ডাইকের ৩৮; আর ৩৬ পেয়ে তৃতীয় হন পাঁচবারের বর্ষসেরা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তবে মেসির এই ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার হওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন নিকারাগুয়া জাতীয় দলের অধিনায়ক হুয়ান বেরেরা। তিনি দাবি করেছেন, মেসিকে বর্ষসেরা বানাতে ভোট কারচুপি করেছে ফিফা। অন্যের ভোট মেসির নামে চালিয়ে দিয়েছে। এমনকি নিকারাগুয়ার অধিনায়ক বেরেরা এবার ফিফা বর্ষসেরায় ভোটই দেননি। কিন্তু তালিকায় দেখানো হয়েছে তিনি মেসিকে ভোট দিয়েছেন।

ফিফা বর্ষসেরার নির্বাচনের নিয়ম অনুযায়ী, ফিফা র‌্যাংকিংয়ে থাকা প্রত্যেক দেশের অধিনায়ক, কোচ এবং একজন করে ক্রীড়া সাংবাদিক তার পছন্দের ফুটবলারকে ভোট দিতে পারেন। ভোটের মানও আলাদা আলাদা। প্রত্যেকের প্রথম ভোটের পয়েন্ট ৫, দ্বিতীয় ভোট ৩ এবং তৃতীয় ভোটের মান ১ পয়েন্ট। সেই হিসেবে মেসিকে গুরুত্বপূর্ণ পাঁচ পয়েন্ট পাইয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি নিকারাগুয়ার অধিনায়কের। তার প্রথম ভোট মেসিকে, দ্বিতীয় ভোট সাদিও মানে এবং তৃতীয় ভোট ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর নামে দেখানো হয়েছে।

তিনি দেশটির এক জাতীয় দৈনিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমি মেসিকে ভোট দেইনি। এবারের ফিফা বর্ষসেরার নির্বাচনেই ভোট দেয়নি আমি। অথচ তালিকায় দেখানো হচ্ছে আমি মেসিকে ভোট দিয়েছি।’ ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচন নিয়ে তাই ফিফার দিকে আঙুল তুলেছেন বেরেরা। শুধু নিজ দেশের জাতীয় দৈনিকে নয় বেরেরা তার নিজস্ব টুইটার থেকে একটি টুইট করেছেন। সেখানেও তিনি একই কথা বলেছেন। দাবি করেছেন এবার তিনি ভোট দেননি ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচনে।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..