সংবাদ শিরোনাম :
বঙ্গোপসাগরে মাছধরার ট্রলারডুবি ঘটনায় ৪ জনের মরদেহ উদ্ধার, নিখোঁজ ১০ এটাই মুজিববর্ষের সব থেকে বড় উৎসব রায়পুরায় শীতার্তদের মাঝে কেন্দ্রীয় নেতা কাওছারের কম্বল বিতরণ নরসিংদীর চিনিশপুরে মরহুম নেতাদের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল নরসিংদীতে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে কাল রায়পুরায় রাইস প্লান্টারের মাধ্যমে ৫০ একর জমিতে ধানের চারা রোপণ উদ্বোধন নরসিংদীতে গৃহহীন পরিবারের মাঝে হস্তাতরের অপেক্ষায় ২২১ টি ঘর ভারতের করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটে আগুন বাংলাদেশের কাছে ভারতের করোনা ভ্যাকসিন হস্তান্তর

টুকরো-টাকরা ভাবনা যত

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯

জীবনকে মৃত্যুর নিকট একদিন পরাজয়বরণ করতেই হবে । এটিই প্রকৃ্তির অমোঘ নিয়ম । এর কোনো পরিবর্তন নেই । তাই বলে জীবন মৃত্যুর নিকট আত্মসমর্পণ করে বসে থাকবে না । Death should find life a hard nut to crack. শক্ত একটা লড়াই তো করতে হবে । তারুণ্যকে ধরে রাখুন । স্রষ্টায় বিশ্বাস রেখে সৎ্কর্ম করুন এবং পাপহীন অনাবিল আনন্দে থাকুন ।

জীবনকে জীবনময় রাখুন; মৃত্যুময় নয় । আর পরলোকে দৃঢ় বিশ্বাস স্থাপন করতে যদি নাও পারেন, তথাপি ধরে নিন যে পরলোক আছে এবং তার জন্য প্রস্তুতি নিন । সেই অজানা দেশে সঙ্গীবিহীন এক মহাযাত্রার জন্য প্রস্তুত থাকুন ।এই প্রস্তুতি নিলে পরলোক নাইবা যদি থাকে তাতে আপনার কোনো ক্ষতির আশঙ্কা নেই; কিন্তু পরলোক যদি থাকে তবে লাভবান হবার সম্ভাবনা আছে ।

বিবেককে সুস্থ ও সক্রিয় রাখুন । কারণ, যে মানুষের বিবেক নিষ্ক্রিয় বা মরে গেছে সে আর মানুষ থাকে না; পশুতে পরিণত হয় । অবশ্য পশুর কোনো বিবেক নেই; তাদের কোনো পাপ-পুণ্যও নেই । কিন্তু বিবেকহীন মানুষ পশুর চেয়েও বেশী পাশবিক হতে পারে । পাপাচারে যখন কারো বিবেক আর দংশিত হয় না, তখন তার আর পশুর মাঝে কোনো পার্থক্য বিরাজ করে না । সৃষ্টিকর্তা যাকে সৃষ্টির সেরা প্রাণী করে এ ধরায় প্রেরণ করলেন তার এই অধঃপতনের জন্য সে নিজেই দায়ী; এবং এর জন্য একটি শাস্তি তার প্রাপ্য হতেই পারে । তাকে সেই শাস্তি প্রদানের নিমিত্তে স্রষ্টা মৃত্যু-পরবর্তী আরেক জীবন মানুষের জন্য রাখতেই পারেন । তার কারণ, অনেকেই এ জগতে তাদের পাপের শাস্তি পেশীশক্তি ও অর্থশক্তি প্রয়োগ করে এড়িয়ে যেতে সক্ষম । আবার যাঁরা পুণ্যবান হয়েও ইহকালে তেমন কোনো পুরষ্কার বা সুখ ও স্বীকৃতিলাভ করেননি, তাঁদেরকে পুরষ্কৃত করবার জন্যও হয়তো পরলোক থাকবার প্রয়োজন আছে । তাই পরলোক থাকাটা অস্বাভাবিক নয় । সর্বশক্তিমান স্রষ্টা শূন্য থেকে আমাদেরকে সৃষ্টি করেছেন । মাতৃগর্ভে নিঃশব্দে তিনি আমাদের বিনির্মাণ করেছেন, আকার প্রদান করেছেন এবং যথাসময়ে আমাদের দেহে জীবন ফুঁকে দিয়েছেন । এ সব বিষয়ে একটু চিন্তা করলেই বিশ্বের স্রষ্টা ও নিয়ন্ত্রক যে একজন আছেন তা সহজেই উপলব্ধি করা যায় । এই সত্য উপলব্ধির জন্য খুব বেশি মেধার প্রয়োজন হয় না, শুধু যদি আত্মপ্রবঞ্চনার মোড়কে মনটা মোড়ানো না থাকে । সাধারণ মেধা ও বুদ্ধি দিয়েই তা বোঝা যায় । বারংবার সৃষ্টির সক্ষমতাসম্পন্ন স্রষ্টা মানুষের মৃত্যুর পর পুনরায় তাকে জীবন দান করতেই পারেন ।

লেখক

মুহম্মদ আজিজুল হক, লেখক ও গবেষক

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..