সংবাদ শিরোনাম :
নরসিংদীতে ডিবি পুলিশের পৃথক অভিযানে দুটি পিস্তল ও ইয়াবাসহ ৬ জন গ্রেফতার বিশ্বের প্রথম সংবাদকর্মী হিসেবে করোনা ভ্যাকসিন নিতে যাচ্ছেন বাংলাদেশী সংবাদকর্মী নরসিংদীর মাধবদী পৌরসভায় মেয়র পদে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ফরম সংগ্রহ নরসিংদীতে ওষুদ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা নরসিংদীতে দ্রব্য মূল্যের উর্ধ্বগতিতে বানিজ্যমন্ত্রী ও সিইসি’র পদত্যাগের দাবীতে মানববন্ধন নরসিংদীতে স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মীসভায় রুবেলের বিশাল মিছিল, অতিথিদের প্রশংসা রায়পুরায় “মুক্ত স্বদেশে জাতির পিতা” বইয়ের মোড়ক উন্মোচনসহ প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক উদ্বোধন বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে নরসিংদী জেলা পুলিশের বিনম্র শ্রদ্ধা নরসিংদীতে ফেনসিডিলসহ ২ চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে দুস্থ ও গরিবদের মাঝে শীতবস্ত্রসহ চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ

ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনা না ফেরার দেশে

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক

পৃথিবীর সব মায়া ছেড়ে বিশ্বের কোটি কোটি ভক্তকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনা। খবরটি নিশ্চিত করেছে বার্তা সংস্থা এএফপি। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ সময় বুধবার রাতে নিজ বাসায় মারা যান তিনি। বাংলাদেশ সময় রাত ১০টার পর পর তার মৃত্যূর খবর ছড়িয়ে পড়ে আর্জেন্টিনার মিডিয়াগুলোতে। মৃত্যুকালে আর্জেন্টাইন এই কিংবদন্তির বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন ৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী এ কিংবদন্তি।

গত মাসে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছিলেন ম্যারাডোনা। বুয়েনস এইরেসের হাসপাতালে তার মস্তিষ্কে জরুরি অস্ত্রোপচার করা হয়। মস্তিষ্কে জমাট বেঁধে থাকা রক্ত অপসারণ করা হয়েছিল। তখন মাদকাসক্তি নিয়ে ভীষণ সমস্যায় ভুগেছেন ম্যারাডোনা।

অনেক বিশেষজ্ঞ, ফুটবল সমালোচক, সাবেক ও বর্তমান খেলোয়াড় এবং ফুটবল সমর্থক তাকে সর্বকালের সেরা ফুটবলার হিসেবে গণ্য করেন।  তিনি ফিফার বিংশ শতাব্দীর সেরা খেলোয়াড়ে পেলের সঙ্গে যৌথভাবে ছিলেন।

আর্জেন্টাইন ক্লাব বোকা জুনিয়র্স থেকে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন ম্যারাডোনা। এরপর ইতালিয়ান ক্লাব ন্যাপোলি ছিল তার সোনালি যুগের ক্লাব। খেলেছেন বার্সেলোনার জার্সিতেও। কিন্তু ১৯৮৬ বিশ্বকাপে একক নৈপুণ্যে আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ জেতানোর পর থেকেই ফুটবল বিশ্বে অবিসংবাধিত কিংবদন্তিতে পরিণত হন তিনি।

কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যে দুটি গোল করেছিলেন, সে দুটিই ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই করে নিয়েছে। প্রথমটি করেছিলেন হাত দিয়ে। যে কারণে এটাকে বলা হয় ‘দ্য হ্যান্ড অব গড’। অন্যটি করেছিলেন মাঝ মাঠ থেকে এককভাবে টেনে নিয়ে গিয়ে। সেই গোলটারই নাম হয়ে যায় ‘গোল অব দ্য সেঞ্চুরি’।

ম্যারাডোনাই একমাত্র খেলোয়াড় যিনি দুইবার স্থানান্তর ফি এর ক্ষেত্র বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন। প্রথমবার বার্সেলোনায় স্থানান্তরের সময় ৫ মিলিয়ন ইউরো এবং দ্বিতীয়বার নাপোলিতে স্থানান্তরের সময় ৬.৯ মিলিয়ন ইউরো।

পেশাদার ক্যারিয়ারে ম্যারাডোনা আর্জেন্টিনা জুনিয়র্স, বোকা জুনিয়র্স, বার্সেলোনা, নাপোলি, সেভিয়া এবং নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়ে খেলেছেন।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..