1. mostafa0192@gmail.com : admin :
রাঙ্গামাটিতে নানিয়ারচর সেতুটি ‘বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ’ নামকরণের দাবিতে মানববন্ধন - আলোকিত খবর
  • E-paper
  • English Version
  • বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:৫৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ভেড়ামারা সরকারি কলেজে চুরি আমি চাঁদাবাজ নই, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে : যুবলীগ নেতা আতিক নরসিংদীতে মেঘনার পাড়ে বাউল সাধকদের পদচারণায় মুখোর ঐতিহ্যবাহী বাউল মেলা রায়পুরায় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা রায়পুরায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনের অর্থায়নে শীত বস্ত্র বিতরণ রায়পুরা উপজেলা মডেল কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের ৬ষ্ট বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে স্মার্টশিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রয়োজন : আনোয়ারুল আশরাফ খান রায়পুরায় মাদ্রাসার এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে উপজেলা চেয়ারম্যানের কম্বল বিতরণ লায়ন মুজিব-মুনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শনে নেপালের রাষ্ট্রদূত ভৈরবে ১শকেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্য্যব-১৪

রাঙ্গামাটিতে নানিয়ারচর সেতুটি ‘বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ’ নামকরণের দাবিতে মানববন্ধন

  • প্রকাশকাল : বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৬ সময়

মোঃ সুমন, রাজস্থলী (রাঙ্গামাটি):

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার সেতুটি বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ এর নামে নামকরণ করার দাবি জানিয়ে আজ সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ (পিসিএনপি) রাঙামাটি জেলা শাখা।
মানববন্ধনে নাগরিক পরিষদ রাঙামাটি জেলা সহ-সভাপতি কাজী জালোয়ার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান কাজী মজিবর রহমান, মহাসচিব আলমগীর কবির, রাঙামাটি জেলা সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সোলায়মান, পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি মো: হাবীব আজম, ছাত্র নেতা শহীদুল ইসলাম, পারভেজ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলার নানিয়ারচর উপজেলাধীন সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের রাঙামাটি সড়ক বিভাগাধীন বগাছড়ি-নানিয়ারচর-লংগদু জেলা মহাসড়ক (জেড-১৬১২)-এর ১০ম কিলোমিটারে নির্মিত নানিয়ারচর সেতুটির নাম চিত্রশিল্পী “বাবু চুনিলাল দেওয়ান সেতু” নামে নামকরণের নিমিত্তে গত ০৩ জানুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দে সরকার একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেন। উক্ত প্রজ্ঞাপনটি দেখে পার্বত্যবাসী অত্যন্ত ব্যাথিত ও মর্মাহত হয়েছে।

মানববন্ধনে বক্তরা, সরকারের কাছে পার্বত্য এলাকার আপামর জনতার আবেগ অনুভূতি ও মুক্তিযোদ্ধার প্রতি সম্মানের মূল্যায়ন করে উক্ত প্রজ্ঞাপনটি বাতিল করার জোর দাবি জানান।

বক্তারা আরো বলেন, উক্ত সেতুটির পাশে ঘুমিয়ে আছেন বাংলা মায়ের শ্রেষ্ঠ সন্তান বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ। তার সম্মানে উক্ত সেতুটি “বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ সেতু” নামে নামকরণ করার জন্য পার্বত্যবাসী দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিলো। কিন্তু সাধারণ পার্বত্যবাসীর দাবিকে পাশ কাটিয়ে সেতুটি অন্য নামে নামকরণ করা হলো। এতে পার্বত্য এলাকার ছাত্র সমাজ ও সাধারণ জনগণ খুবই মর্মাহত হয়েছে।

বক্তারা বলেন, মুন্সি আব্দুর রউফ বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী একজন শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে চরম সাহসিকতা আর অসামান্য বীরত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ যে সাতজন বীরকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক খেতাব “বীর শ্রেষ্ঠ” উপাধিতে ভূষিত করা হয় তিনি তাঁদের অন্যতম। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে তিনি নিয়মিত পদাতিক সৈন্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন। নানিয়ারচর উপজেলার বুড়িঘাট গ্রামে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে সম্মুখ সমরে ১৯৭১ সালের ৮ এপ্রিল (মতান্তরে ২০ এপ্রিল) তিনি মর্টার শেলের আঘাতে শহীদ হন। তাঁকে রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলার বুড়িঘাটে একটি টিলার ওপর সমাহিত করা হয়। যে নানিয়ারচর এর মাটিতে এই বীরশ্রেষ্ঠ শায়িত রয়েছেন সেই মাটির উপরে একটি সেতুর নামকরণ করা হচ্ছে অন্য নামে যা আমরা রাঙামাটিবাসী তথা পার্বত্যবাসী মেনে নিতে পারছি না। তাই পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার পক্ষ হতে সেতুটির নাম পরিবর্তন করে “বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ সেতু” নামে পুনরায় নামকরণ করার দাবি জানাচ্ছি।

Please Share This Post in Your Social Media

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...