Headline :
নরসিংদীর রায়পুরায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন বোচাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন কুলিয়ারচরে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবুল হোসেন লিটন চেয়ারম্যান নির্বাচিত ময়মনসিংহে প্রতিবেশীর সাথে সংঘর্ষের জেরে কৃষকের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার ৩ সাংবাদিক এস,এম ইসাহক আলী রাজুর জন্মদিন আজ ভেড়ামারায় উপজেলার চেয়ারম্যান হলেন মুকুল এবার ঈদে রিলিজ হচ্ছে পারভীন লিসার “তুমি আমার মনের ভেতর” রায়পুরায় পূজা উদযাপন পরিষদ মির্জাপুর ইউনিয়ন শাখার দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অন্তর্জালে মুক্তি পেলো তরুণ সংগীত শিল্পী রনির গান “দিলে মারে ঝটকা” শীঘ্রই আসছে পলাশ-মিতু’র বিয়াই বিয়াইন
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন

রায়পুরায় নির্বাচন পরবর্তিসহিংসতা;  প্রায় ৩মাস ধরে গ্রাম ছাড়া শতাধিক মানুষ

Reporter Name / ৫৫ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর, ২০২২

ফাহিম আহমেদ খান, স্টাফ রিপোর্টার:

নরসিংদীর রায়পরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলার শ্রীনগর ইউনিয়নের গজারিয়া কান্দির গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য শাহ আলম ও খালেক হাজীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে।

এঘটনার পর থেকে সাবেক ইউপি সদস্য শাহ আলম ও তার সমর্থিতদের ভয়ে গত তিন মাসেরও বেশি সময় যাবত গ্রামের অর্ধশতাধিক পরিবার তাদের বাড়ী ছেড়ে আশ্রয় নিয়েছে আশপাশের গ্রামগুলোতে। এর মধ্যে কেউ কেউ আবার অন্যত্রে তাদের স্বজনদের বাড়ীতে দিনাতিপাত করছেন। গ্রাম ছাড়া পরিবারগুলো সবাই বর্তমান ইউপি সদস্য হাজী খালেক সমর্থিত।

সোমবার (০৭ নভেম্বর) বিকালে রায়পুরা উপজেলার শ্রীনগর ইউনিয়নের গজারিয়াকান্দি গ্রামে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সেখানে গ্রামবাসীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শাহীন মিয়া নামে এক যুবক।

তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, গত ১৩ জুলাই একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় মাথায় টেটাবিদ্ধ হয়ে মফিজ মিয়া নামে একজনের মৃত্যু হয়। নিহত ওই ব্যাক্তি শ্রীনগর ইউনিয়নের ৩ নং ইউপির সাবেক ইউপি সদস্য শাহ আলম সমর্থক ছিলেন।

এছাড়াও গত ইউপি নির্বাচনে যারা শাহ আলমকে ভোট দেয়নি তাদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটিয়েছে। এতে তাদের প্রায় ৪০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরোও বলা হয়, টেটা বিদ্ধ হয়ে মফিজ মিয়া নামের একজন নিহত হয় অপর দিকে খালেক হাজী সমর্থক বাচ্চু মিয়া, মনির মিয়া, তোফাজ্জল হোসেন, শাহ আলম, সিদ্দিক মিয়া ও গোলাপী খাতুন সহ আরোও অন্তত ১৫-২০ জন গুরুতর আহত হয়। এরপর মামলা ও গ্রেফতার আতঙ্কে এলাকা কিছুটা পুরুষশূণ্য হয়ে ওঠার পর প্রতিপক্ষের লোকেরা তাদের ৯৬ টি বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়।

উক্ত বিষয়ে রায়পুরা থানায় একটি মামলা দায়ের করার কথাও জানানো হয়। শেষে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে উল্লেখিত ঘটনায় প্রশাসনের নিকট প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল