Headline :
নরসিংদীর রায়পুরায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন বোচাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন কুলিয়ারচরে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবুল হোসেন লিটন চেয়ারম্যান নির্বাচিত ময়মনসিংহে প্রতিবেশীর সাথে সংঘর্ষের জেরে কৃষকের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার ৩ সাংবাদিক এস,এম ইসাহক আলী রাজুর জন্মদিন আজ ভেড়ামারায় উপজেলার চেয়ারম্যান হলেন মুকুল এবার ঈদে রিলিজ হচ্ছে পারভীন লিসার “তুমি আমার মনের ভেতর” রায়পুরায় পূজা উদযাপন পরিষদ মির্জাপুর ইউনিয়ন শাখার দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অন্তর্জালে মুক্তি পেলো তরুণ সংগীত শিল্পী রনির গান “দিলে মারে ঝটকা” শীঘ্রই আসছে পলাশ-মিতু’র বিয়াই বিয়াইন
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ১০:৫৪ অপরাহ্ন

শ্রীপুরে ডাবল মার্ডার মামলার প্রধান সাক্ষীর মরদেহ উদ্ধার

Reporter Name / ৪৩ Time View
Update : সোমবার, ৭ আগস্ট, ২০২৩

আবু সাইদ, গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের শ্রীপুরে ডাবল মার্ডার মামলার প্রধান স্বাক্ষী মো. শাহজাহান (৩৮) এর ভাসমান মরদেহ উদ্ধার করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। আজ রবিবার দুপুরে উপজেলার রাজাবাড়ি ইউনিয়নের আতলড়া গ্রামের একটি পুকুর থেকে ওই মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত শাহাজাহান ওই গ্রামের মৃত আমির উদ্দিনের ছেলে। শাহজাহান তার মা-বোনের হত্যা মামলার প্রধান স্বাক্ষী ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুল হাসান জানান, ২০১৫ সালে অজ্ঞাত খুনিরা নিহতের মা হাসিনা বেগম ও বোন আরিফাকে নিজ বাড়িতে কোপিয়ে নৃশংশ ভাবে হত্যা করে। ওই ঘটনায় শাহজাহানের ভাই মো. মজিবুর রহমান বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। শাহজাহান ওই মামলা প্রধান স্বাক্ষী ছিলেন।

৫ আগষ্ট শনিবার সকাল নয়টা পর্যন্ত শাহজাহানকে বাড়ির আশপাশে ঘুরাফেরা করতে দেখেছে স্থানীয়রা। তারপর থেকে তিনি নিখোঁজ হন। আজ রবিবার সকালে স্বজনরা বাড়ির অদূরে পুকুরের পানিতে শাহজাহানের মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুরের শহিদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তে রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হয়ে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিহতের ভাই মজিবুর রহমান জানান,২০১৫ সালে অজ্ঞাত খুনিরা আমার মা-বোনকে নিজ বাড়িতে নৃশংশ ভাবে কোপিয়ে হত্যা করে ছিলো। আমি শ্রীপুর থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করি। মামলাটি বর্তমানে আদালতে বিচারাধিন আছে। আমার ভাই মামলার প্রধান স্বাক্ষী ছিলেন। শনিবার সকাল নয়টা থেকে আমার ভাইকে পাওয়া যাচ্ছিলো না। রবিবার সকালে বাড়ির পাশের পুকুরে তার মরদেহ ভাসতে দেখি। সে কিভাবে পুকুরের পানিতে গেলো তা বলতে পারি না এবং তার মৃত্যুর সঠিক কারণও এই মুহূর্তে বলতে পারছিনা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল