নরসিংদীর সড়কে ঝড়ল ৬ জনের প্রাণ

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক

নরসিংদীতে কাভার্ডভ্যান ও যাত্রীবাহী লেগুনার সংঘর্ষে  মা ও ছেলেসহ নরসিংদীর সড়কে ঝড়ল ৬ টি তাজা প্রাণ। নিহতদের মধ্যে ৪ জনের পরিচয় নিশ্চিত করেছে জেলা পুলিশ। শুক্রবার (১৬ জুলাই) দুপুরে পাঁচদোনা-ঘোড়াশাল-টঙ্গী আঞ্চলিক সড়কের সদর উপজেলার চাকশাল নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে, লেগুনার আরও ৫ যাত্রী।

নিহতদের ৬ জনের মধ্যে যে ৪ জনের পরিচয় নিশ্চিত করেছে জেলা পুলিশ তারা হলেন, নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার নোয়াগাও এলাকার আবদুল হান্নানের ছেলে লেগুনা চালক আমান মিয়া (২৩), গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ সোমগ্রামের মৃত মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে চাঁন মিয়া (৫৫), সুনামগঞ্জের দোয়ারা বাজার উপজেলার সাইফুল  ইসলামের স্ত্রী ঝর্না বেগম (৩০) ও তার ছেলে আল-আমিন  মিয়া  (১০)।  বাকি  দুই জনে পরিচয় নেওয়ার চেষ্টা করছেন পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, দুপুর ২টার দিকে পাচঁদোনা থেকে যাত্রীবাহী একটি লেগুনা পলাশ উপজেলার ঘোড়াশালের দিকে যাচ্ছিল। লেগুনাটি পাঁচদোনা-ঘোড়াশাল-টঙ্গী সড়কের চাকশাল নামক স্থানে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা মালবাহী একটি কাভার্ডভ্যান  নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লেগুনাটির সাথে মুখোমুখি  সংর্ঘষ বাধে। এসময় লেগুনাটি ছিটকে সড়কের পাশে উল্টে পড়ে যায় এবং সংঘর্ষে এর সামনের অংশ দুমড়ে-মুছড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই লেগুনাচালক ও দুই যাত্রী নিহত হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠায়। এসময় গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার পথে ও নেওয়ার পর আরো ৩ জন মৃত্যু হয়।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইনামুল হক সাগর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনায় এক শিশুসহ ৬ জন নিহত হয়েছেন। তবে নিহতদের মধ্যে ৪ জনের পরিচয় জানা গেলেও বাকী দুইজনের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। মরদেহগুলো সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

 

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..