সংবাদ শিরোনাম :
হালুয়াঘাটে কণ্ঠশিল্পী সালমার “ইউরোপিয়ান পার্ক” উদ্বোধন রায়পুরায় দেড় কিলোমিটার কার্পেটিং রাস্তার অভাবে দূর্ভোগ ২০ হাজার মানুষ মসজিদে মুসুল্লিদের সচেতনতায় বক্তব‍্য রেখে ঢাকা রেঞ্জে শ্রেষ্ঠ ওসি সওগাতুল রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত নরসিংদীতে উপনির্বাচনে নৌকার বিজয়ে আশরাফ সরকারের বিজয় মিছিল নরসিংদীতে সদর ফারিয়ার ভোট গ্রহণ সম্পন্ন নরসিংদীর চরাঞ্চল পল্লী চিকিৎসক সমিতি ও ঔষধ ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের আনন্দ ভ্রমণ আত্রাইয়ে গ্রামীণ সড়কে তালগাছ রোপন: বছরে কোটি টাকা বাড়তি আয়ের সম্ভাবনা কুমিল্লায় বাস চাপায় সড়কে প্রান গেল তিন জনের নওগাঁয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়েও বাড়িছাড়া প্রতিবন্ধী পরিবার

নরসিংদীতে চাঞ্চল্যকর ডাকাতি ও হত্যায় জড়িত ৪ ডাকাত গ্রেফতার

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক

নরসিংদীতে ডাকাতি ও গৃহ কর্তার ছেলেকে খুনের সাথে জড়িত ৪ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে জেলা পুলিশ। সেই সাথে লুন্ঠিত নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়। সোমবার  (২৬ জুলাই) বেলা ১১টায় জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার  আশরাফুল আজীম।

আটককৃত ডাকাত দলের সদস্যরা হলেন- রায়পুরা উপজেলার বটতলী গ্রামের মৃত সিদ্দিক মিয়ার ছেলে মো: শেখ ফরিদ (৩৫), একই উপজেলার বাহেরচর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে রাজা মিয়া (৩২), চর আড়ালিয়া গ্রামের মৃত রাজা মিয়ার ছেলে আল আমিন (৩৩) ও রাজনগর গ্রামের রহিম উদ্দিনের ছেলে মো: দুলাল মিয়া ।

পুলিশ সুপার জানায়, গত ১৬ জুলাই রাত সাড়ে ৩ টার দিকে নরসিংদী মডেল থানাধীন দক্ষিন নাগরিয়া কান্দি এলাকার মোবারক হোসেন তিনতলা বাড়ীর পেছনের দিকের জানালার গ্রীল কেটে ভিতরে ঢুকে ৭/ ৮ জনের একটি ডাকাত দল। তারা বাড়ির লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এবং হাত পা বেধে ফেলে। ডাকাত দলের সদস্যরা টাকা ও স্বর্নালংকার লুট শুরু করলে গৃহকর্তার ছেলে ইন্টারনেট ব্যবসায়ী সাজ্জাদ হোসেন আরিফ বাধা প্রদান করলে  ডাকাতরা তাকে এলোপাতারি ছুরিকাঘাত করে।  আরিফকে এলোপাতারি ছুরিকাঘাত করার দৃশ্য দেখে বাড়ির লোকজন আর্তচিৎকার শুরু করলে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। পরে আশেপাশের লোকজন এসে আরিফকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। ডাকাত দল ২ ভরি ৬ আনা স্বর্নালংকার ও ১ লাখ ২০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় গত ১৮ জুলাই মোবারক হোসেন নরসিংদী মডেল থানা একটি এজাহার দায়ের করেন।

তিনি জানান ঘটনার পর জেলা পুলিশ অভিযানে নামে এবং গত ২২ জুলাই ব্রাহ্মনবাড়িয়ার বাঞ্চারামপুরের মরিচা কান্দি এলাকা থেকে এ ঘটনায় জড়িত ডাকাত মো: শেখ ফরিদকে গ্রেফতার করে। পরে তাকে আদালতে হাজির করলে সেখানে  স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

তার দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে অন্য আসামীদের গ্রেফাতারে অভিযানে নামে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ । গত ২৫ জুলাই  উপজেলার হাইরমারা বাজার থেকে রাজা মিয়াকে  গ্রেফতার করেন। এসময় তার কাছ থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছোরা উদ্ধার করে পুলিশ। একই দিন আমিরগঞ্জ এলাকা থেকে আল আমিনকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ডাকাতির ভাগের টাকা ও আমিরগঞ্জ বাজার একটি স্বর্ণের দোকান থেকে লুন্ঠিত স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে পুলিশ। পরবর্তীতে আল আমিনের দেওয়া তথ্য মতে উপজেলা রাজনগর গ্রামের দুলালকে তার নিজ বাড়ী থেকে  গ্রেফতার করা হয়।

পরে গ্রেফতারকৃত বাকী তিন জন ডাকাতি ও হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, এঘটানার আরও তিনজন জড়িত থাকা প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাদেরকে গ্রেফতারে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

উল্রেখ্য গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের  নামে এর আগেও বিভিন্ন থানা ডাকাতি মামলা রয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..