1. mostafa0192@gmail.com : admin :
নরসিংদীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলি করে হত্যা মামলার দুই আসামী গ্রেপ্তার - আলোকিত খবর
  • E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৩৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ভেড়ামারা সরকারি কলেজে চুরি আমি চাঁদাবাজ নই, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে : যুবলীগ নেতা আতিক নরসিংদীতে মেঘনার পাড়ে বাউল সাধকদের পদচারণায় মুখোর ঐতিহ্যবাহী বাউল মেলা রায়পুরায় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা রায়পুরায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনের অর্থায়নে শীত বস্ত্র বিতরণ রায়পুরা উপজেলা মডেল কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের ৬ষ্ট বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে স্মার্টশিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রয়োজন : আনোয়ারুল আশরাফ খান রায়পুরায় মাদ্রাসার এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে উপজেলা চেয়ারম্যানের কম্বল বিতরণ লায়ন মুজিব-মুনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শনে নেপালের রাষ্ট্রদূত ভৈরবে ১শকেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্য্যব-১৪

নরসিংদীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলি করে হত্যা মামলার দুই আসামী গ্রেপ্তার

  • প্রকাশকাল : শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ১৮ সময়

নরসিংদী প্রতিনিধি:

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার মির্জারচর ইউপি চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল মানিককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় জড়িত আরও দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

বৃহস্পতিবার রাতে রায়পুরা থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

শুক্রবার দুপুরে নরসিংদী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম এই তথ্য জানিয়েছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো রায়পুরা থানার মির্জারচর বিরামপাড়া এলাকার জয়নাল মিয়ার ছেলে রমজান (২৮) ও মির্জারচর ব্যাপারী বাড়ির আবু সিদ্দিক এর ছেলে রাসেল ওরফে এবাদুল্লাহ (৩৫)। এসময় তাদের দখল থেকে দুটি একনলা বন্দুক ও ১০ রাউন্ড গুলি জব্দ করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম জানান, চর এলাকার আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জেরে ইউপি চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল মানিককে হত্যার পরিকল্পনা করে প্রতিপক্ষ আসামীরা। পরিকল্পনা অনুযায়ী এক সপ্তাহ পর মির্জারচর ইউনিয়নের শান্তিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মেঘনার পাড়ে বেরিবাধের অগ্রগতি বিষয়ক সভা শেষ করে ফেরার পথে চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল মানিককে গুলি করে হত্যা করে আসামীরা। এই ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মাহফুজা আক্তার বাদী হয়ে ২১ জনের নামসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

হত্যার পর থেকে আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রাখে জেলা পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে রমজান ও রাসেল ওরফে এবাদুল্লাহকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের দখল থেকে দুটি একনলা বন্দুক ও ১০ রাউন্ড গুলি জব্দ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হত্যায় সরাসরি জড়িত ছিল বলে পুলিশের নিকট স্বীকার করেছে। এই হত্যা মামলায় অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গ্রেপ্তারকৃত রমজানের বিরুদ্ধে ৩টি হত্যাসহ মারামারি ও বিস্ফোরক আইনে রায়পুরা থানায় ৪টি মামলা ও রাসেল ওরফে এবাদুল্লাহর বিরুদ্ধে ৪টি হত্যাসহ মারামারি ও বিস্ফোরক আইনে ৫টি মামলা রয়েছে।

এর আগে এই মামলায় শান্তিপুর এলাকার মহরম আলী ও মির্জারচরের বালুচর এলাকার মো: আব্দুল্লাহ নামে আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

Please Share This Post in Your Social Media

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...